বুয়েট ছাত্র আবরার হত্যা মামলায় এ পর্যন্ত ২০ জন গ্রেফতার

0
199

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ রাব্বীকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এ পর্যন্ত ২০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ২০ জনের মধ্যে এজাহারনামীয় ১৬ জন এবং এজাহার বহির্ভূত ৪ জন। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ৬ জন বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে। এছাড়া মামলার তদন্তের স্বার্থে বিজ্ঞ আদালতের আদেশে ৭ জন রিমান্ডে আছে এবং ১৩ জনকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে এজাহারনামীয় ১৬ জন হলো- ১। মেহেদী হাসান রাসেল, ২। মোঃ অনিক সরকার, ৩। ইফতি মোশাররফ সকাল, ৪। মোঃ মেহেদী হাসান রবিন, ৫। মোঃ মেফতাহুল ইসলাম জিওন, ৬। মুনতাসির আলম জেমি, ৭। খন্দকার তাবাখখারুল ইসলাম তানভির, ৮। মোঃ মুজাহিদুর রহমান, ৯। মুহতাসিম ফুয়াদ, ১০। মোঃ মনিরুজ্জামান মনির, ১১। মোঃ আকাশ হোসেন, ১২। হোসেন মোহাম্মদ তোহা, ১৩। মোঃ মাজেদুল ইসলাম, ১৪। শামীম বিল্লাহ, ১৫। মোয়াজ আবু হুরায়রা ও ১৬। এ এস এম নাজমুস সাদাত।

এজাহার বহির্ভূত ৪ জন হলো- ১। ইসতিয়াক আহম্মেদ মুন্না২। অমিত সাহা৩। মোঃ মিজানুর রহমান ওরফে মিজান ও ৪। শামসুল আরেফিন রাফাত।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ইফতি মোশাররফ সকাল, মোঃ মেফতাহুল ইসলাম জিওন, মোঃ অনিক সরকার, মোঃ মুজাহিদুর রহমান মুজাহিদ, মোঃ মনিরুজ্জামান মনির ও মেহেদী হাসান রবিন বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছে।

এছাড়াও মোঃ মাজেদুল ইসলাম, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, শামীম বিল্লাহ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, শামসুল আরেফিন রাফাত, অমিত সাহা এবং এ এস এম নাজমুস সাদাত বিজ্ঞ আদালতের আদেশে রিমান্ডে আছে।

ভিকটিম ও অভিযুক্তদের ল্যাপটপ, মোবাইল, সিসিটিভি (DVR), স্ক্রীনশট পরীক্ষা করার জন্য সিআইডি’র ফরেনসিক ল্যাবে প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ৬ অক্টোবর, ২০১৯ দিবাগত মধ্যরাতে বুয়েটের সাধারণ ছাত্র ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আবরারকে শেরেবাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। সোমবার (৭ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৬টার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এই ঘটনা সংক্রান্তে নিহতের বাবা মোঃ বরকত উল্লাহ চকবাজার থানায় লিখিত অভিযোগ করলে একটি হত্যা মামলা রুজু হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here